1. editor@dailybogratimes.com : dailybogratimes. :
ধামইরহাটে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বলে ভোট চাওয়ার অভিযোগ চেয়ারম্যান প্রার্থী আজাহারের বিরুদ্ধে  » Daily Bogra Times
Logo শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ০১:১২ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
রংপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত, আহত ১২ করতোয়া নদীতে নারীর হাত-পা বাঁধা মরদেহ হার দিয়েই সুপার এইটের যাত্রা শুরু বাংলাদেশের ঢাকার বাজারে কাঁচা মরিচের কেজি ৪০০ টাকা ইংরেজীতে উপস্থাপনায় দেশসেরা ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী পাঁচবিবির জোবাইদা নাচোলে হত্যা মামলার আসামীর রহস্যজনক মৃত্যু এক ছাগলেই ওলট-পালট করে দিলো লাকি-মতিউর এর সংসার চাঁপাইনবাবগঞ্জে জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত ১ প্রস্রাবের রং দেখেই রোগ ও চিকিৎসা নির্ণয় রাসেলস ভাইপার থেকে বাঁচার দোয়া পাচারের কারণেই ডলার সংকটের শুরু, সাবেক পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ঘুমন্ত অবস্থায় পাহাড়ধস, স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু তিস্তায় বিপৎসীমার ওপরে পানি , ১৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি আলভারেজ-মার্টিনেজের গোলে কোপায় শুভসূচনা আর্জেন্টিনার সুপার এইট এ- ১৪০ রানে থামল বাংলাদেশ, বৃষ্টির হানা

ধামইরহাটে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বলে ভোট চাওয়ার অভিযোগ চেয়ারম্যান প্রার্থী আজাহারের বিরুদ্ধে 

গৌরব প্রসাদ সাহা, ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি: 
  • বুধবার, ১ মে, ২০২৪
  • ১১৬ বার পঠিত
ধামইরহাটে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বলে ভোট চাওয়ার অভিযোগ চেয়ারম্যান প্রার্থী আজাহারের বিরুদ্ধে 
print news

গৌরব প্রসাদ সাহা, ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর ধামইরহাটে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন ও আওয়ামী লীগের নির্দেশনা না মানার অভিযোগ উঠেছে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আজাহার আলীর বিরুদ্ধে। 

দলীয় নির্দেশনা না মানায় সাধারণ ভোটার ও বিভিন্ন পর্যায়ের আওয়ামী সমর্থকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

বুধবার (১ মে) বেলা সাড়ে এগারোটায় উপজেলা আওয়ামী লীগের একাধিক নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটাররা অভিযোগ করে বলেন, আজাহার আলী উপজেলার উমার ইউনিয়ন, আড়ানগর ইউনিয়নসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণার সময় নিজেকে আওয়ামী লীগের একক মনোনীত প্রার্থী বলে ঘোষণা করে ভোট প্রার্থনা করছেন। এবং তা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ায় ওই প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ তোলেন নিজ দলের একাধিক নেতাকর্মী, স্থানীয় জনগণ ও সাধারণ ভোটাররা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা ভিডিওতে দেখা যায়, ভোটার ও দলীয় সমর্থকদের উদ্দেশ্যে আজাহার আলী বলেন, “এর আগে আমি আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছিলাম। প্রতীক ছিল নৌকা। নৌকা মার্কায় আমাকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করায় পাঁচ বছর দায়িত্ব পালন করেছি। আওয়ামী লীগ মনোনীত একক প্রার্থী হিসেবে এবারও আমাকে আনারস মার্কায় ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করবেন। এ সময় পাঁচ বছর চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনকালে ভোটারদের কাছে ভুলের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেন তিনি।”

নির্বাচনী প্রচারণায় একাধিক ভিডিওতে দলীয় সমর্থক ও ভোটারদের উদ্দেশ্যে আজাহার এও বলেন, ‘সরকার আওয়ামী লীগের, মন্ত্রীও আওয়ামী লীগের কিন্তু আড়ানগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের নয়। এ কারণে এই ইউনিয়নে একটি ঘাটতি রয়ে গেছে। এই ঘাটটি পূরণ করার জন্য উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীকে আনারস মার্কায় ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করবেন।”

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতা ও স্থানীয় ভোটাররা জানান যে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কোন দলীয় প্রতীক নেই। সুতরাং দলীয় প্রতীক ছাড়া প্রার্থীদের স্বতন্ত্র প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করার কথা থাকলেও আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আজাহার আলী নিজেকে দলীয় মনোনীত একক প্রার্থী ঘোষণা দিয়ে কীভাবে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালাতে পারে?

আচরণ বিধি লঙ্ঘনের বিষয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আজাহার আলী অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ধামইরহাট মডেল প্রেসক্লাবের সভাপতি অরিন্দম মাহমুদকে বলেন, “ফাউল কথা বলো তুমি? আমি কিসের প্রার্থী আর তারা কিসের প্রার্থী এটা কি নতুন করে তোমাকে বলতে হবে? কী সাংবাদিকতা কর?”

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলদার হোসেন বলেন, “এ বিষয়ে দলীয়ভাবে কোন লিখিত নির্দেশনা পাইনি। দলীয় প্রতীক নৌকা না থাকায়, দলে একাধিক প্রার্থী থাকলে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে নিজ যোগ্যতায় জয়লাভ করে আসতে হবে”

জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার তারিফুজ্জামান বলেন, “উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত কোন প্রার্থী নেই। সকলেই স্বতন্ত্র প্রার্থী। একদল থেকে একাধিক আওয়ামী লীগ সমর্থক থাকতে পারে। তাই বলে কেউ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নয়।”

নির্বাচন অফিসার এও বলেন, “কোনো প্রার্থী নিজেকে দলীয় পরিচয় দিয়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা করতে পারবেন না। এবিষয়ে অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আসমা খাতুন বলেন, “আচরণ বিধি লঙ্ঘনের বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এনাম হক / ডেইলি বগুড়া টাইমস

আরো খবর
© All rights reserved by Daily Bogra Times  © 2023
Theme Customized BY LatestNews