1. editor@dailybogratimes.com : dailybogratimes. :
বগুড়ার আদমদীঘির মাদুর এখন বিশ্ববাজারে » Daily Bogra Times
Logo রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ১০:৪৩ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
দেশেই রাসায়নিক কারখানা তৈরি করতে চান ব্যবসায়ীরা কাঁচা মরিচের কেজি ২০০ টাকা ছারলো আবারও বাড়ল স্বর্ণের দাম বগুড়ার দুই হিমাগারে এক লাখ ৮ হাজার ডিম জব্দ ১০ ‍দিনের ব্যবধানে কাঁচা মরিচের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ প্যালেস্টাইনে ইসরায়েলি নৃশংসতা গণহত্যার প্রতিবাদে নওগাঁয় সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সংহতি সমাবেশ পাঁচবিবিতে শেষ মুহূর্তে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রেবেকা সুলতানার গণসংযোগ  বদলগাছীতে ভর্তুকিতে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন বিতরন  যে সাহাবির তিলাওয়াত শুনতে ভিড় জমিয়েছিলেন ফেরেশতারা মহাদেবপুরে ধানক্ষেত থেকে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী যুবকের ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার মোটরসাইকেল কিনে না দেয়ায় বাবা-মায়ের উপর অভিমান করে কিশোরের আত্মহত্যা  রাজশাহী জেলা পরিষদের উদ্যোগে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মাণ কাজের শুভ সূচনা আমি লজ্জিত নই বিষয়টি নিয়ে :জেফার বিশ্বকাপ জার্সি উন্মোচন কবে, যা বললেন জালাল ইউনুস  মজাদার ক্ষীর তৈরি করুন আম দিয়েই

বগুড়ার আদমদীঘির মাদুর এখন বিশ্ববাজারে

রবিউল ইসলাম (রবীন), আদমদীঘি (বগুড়া) ঃ
  • রবিবার, ১২ মে, ২০২৪
  • ১৭ বার পঠিত
বগুড়ার আদমদীঘির মাদুর এখন বিশ্ববাজারে
print news

আদমদীঘি (বগুড়া) ঃ বগুড়ার আদমদীঘির মাদুর এখন বিশ্ববাজারে। বগুড়ার আদমদীঘির মানুষের রয়েছে মাদুর তৈরীর বিশেষ খ্যাতি। নিপুন হাতে গড়া এই মাদুর শিল্প এখন শুধু দেশে নয়, বিশ্ব বাজারেও
নাম করেছে। এই শিল্পকে ভর করে এ এলাকার মানুষ দারিদ্রতাকে জয় করেছে।
কোন রকম প্রচার প্রচারনা ও সরকারী-বেসরকারী সাহায্য ছাড়াই এখানে
গড়ে উঠেছে বিশাল এক কর্মক্ষেত্র।

আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার ইউনিয়নের দুটি গ্রাম ছাতনী ও ঢেকড়া।
প্রাচীন কাল থেকে এই দুই গ্রামের শতকরা ৯০ ভাগ মানুষ মাদুর পেশায়
নিয়োজিত। এই গ্রাম দুটিতে মাদুর শিল্পের বিকাশ দেখে পাশ্ববর্তি
বোদলা, কুজাইল, কাশীমপুর, কেল্লাপাড়া, পালœা, ত্রিমোহিনি,রানীনগর
এলাকার শ্রমিকরা এ শিল্পকে পেশা হিসাবে নিয়েছে। কম খরচে অধিক
উৎপাদন এবং যন্ত্রপাতির তেমন ঝক্কি- ঝামেলা নেই, ফলে সহজে মাদুর উৎপাদন
এবং তৈরি করা সম্ভব।

Screenshot 1 33

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে প্রাচীন আমল থেকে এ অঞ্চলে মাদুরের প্রচলন
শুরু হয়। মাদুর যে কাঁচামাল দিয়ে তৈরি তাকে বলা হয় পাতি। পাতি তৈরি হয়
মুথা নামের এক ধরনের বীজ থেকে। মুথা নিচু জমিতে জ¤œায়। জমির
কাদার সঙ্গে এগুলি লেগে থাকে। কাদা থেকে ধুয়ে তুললে দেখা যাবে অনেকটা
গিল্টা ধরনের। মুথাকে উঁচু জমিতে কাঁদা করে টুকরো টুকরো ভাবে
পাতানো হয়। ৫-৭ দিন পর দেখা যায় ওই গিল্টা থেকে পাতি নামে এক ধরনের
চারা জ¤েœ। এই চারা ২৫ দিন পর তুলে অল্প পানিতে ৪ ইঞ্চি পর পর লাগানো
হয়। ৭০ থেকে ৮০ দিন পর চার থেকে সোয়া চার হাত যখন এটি লম্বা হয়,
তখন এটিকে কেটে তিন থেকে চার বার রোদে শুকানো হয়। পাতি থেকে
দেশিয় প্রযুক্তির মাধ্যমে মাদুর তৈরি হয়।
একটি মাদুর তৈরি করতে ৪০-৫০ মিনিট সময় লাগে। যেটি বুননের জন্য মাত্র
দুজন শ্রমিকের প্রয়োজন হয়। মাদুর শিল্প অধিক লাভজনক এই কারনে যে,
একই আবাদ একবার বুননের পর তা তিনবার কাটা যায়। ভারত, পাকিস্তান,
শ্রীলংকা থেকে উন্নত বীজ এনে এ অঞ্চলে বনপাতি সহ পাতির চাষ শুরু
হয়েছে ।মাদুরের উচ্চতা অনুসারে দাম নির্ধারিত হয়। দেড় হাতি মাদুর
বিক্রি হয় ৪০-৫০ টাকায়, চার হাতি মাদুর বিক্রি হয় ৭০-৮০ টাকায়, ছয়
হাতি মাদুর বিক্রি হয় ১০০-১২০ টাকায়। পাইকারি ভাবে বিক্রি করার জন্য
ক্রেতারা ঢাকা, চট্রগ্রাম, সিলেট সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে দুর পাল্লার
বাস ও ট্রেনে নিয়ে যায় বিক্রি করার উদ্দেশ্য। প্রতি বছর মাদুর ব্যবসা করে
এই এলাকার কৃষকরা শত কোটি টাকার ব্যবসা করে।

এই এলাকার মাদুর শিল্প ভারত, শ্রীলংকা, সৌদি আরব, কুয়েত, কাতার, মিসর,
ইরান ইরাক, ইত্যাদি দেশে রপ্তানি হচ্ছে। সংসারের নানা কাজে, নামাজের
জায়নামাজ হিসাবে মাদুর ব্যবহার হয়। এই শিল্পের উপর ভর করে এই এলাকার
মানুষ দারিদ্রতাকে জয় করেছে।

ছাতনি গ্রামের মাদুর ব্যবসায়ি জাহাঙ্গির আলম খাঁন জানান, এই
এলাকায় একটি বাণিজ্যিক ব্যাংকের শাখার খুব প্রয়োজন। এ ছাড়া
বর্তমানে এই এলাকার রেলওয়ে হেলালিয়া স্টেশনটি বন্ধ রয়েছে, যার ফলে মাদুর
পরিবহনে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। এ ছাড়া সরকারি পর্যায়ে মাদুর শিল্পের
উন্নয়নে ঋন ব্যবস্থা করা হলে এই শিল্পের ব্যাপক বিকাশের সম্ভাবনা আছে।

এনাম হক / ডেইলি বগুড়া টাইমস

আরো খবর
© All rights reserved by Daily Bogra Times  © 2023
Theme Customized BY LatestNews